অপরাধএক্সক্লুসিভ নিউজ

যশোরে যুবক খুন: গ্রেফতার ১

এক্সক্লুসিভ নিউজ ডেস্ক: যশোরের এহসানুল হক ওরফে ইমু (৩২) হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনসহ একজন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন(পিবিআই)। গ্রেফতারকৃতের নাম-আল শাহরিয়ার (২০)।

মামলার তদন্ত তদারকি কর্মকর্তা ও পিবিআই (যশোর) ইউনিট ইনচার্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম, কে, এইচ, জাহাঙ্গীর হোসেন, পিপিএম, ডিএমপি নিউজকে জানান, গত ২১ জুন, ২০২০ দিবাগত রাতে এহসানুল হক কোতয়ালী থানার নিউ মার্কেট শিশু হাসপাতালের বিপরীত দিকে “রয়েল টি স্টল”এ বসে চা পান করা অবস্থায় দুষ্কৃতিকারীদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় লোকজন চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসারতঃ অবস্থায় ভিকটিম মারা যায়। এ সংক্রান্তে যশোর কোতয়ালী মডেল থানায় ভিকটিমের পিতা একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পিবিআই যশোর জেলা ক্রাইসিন টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনের চেষ্টা অব্যহত রাখেন।

তিনি বলেন, তদন্তের ধারাবাহিকতায় যশোর জেলার আভিযানিক দল আল শাহরিয়া (২০) কে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আল শাহরিয়ারসহ মোট ৯ জন হত্যাকান্ডের সহিত জড়িত মর্মে স্বীকার করলে তাকে মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে তিনি জানান যায়, গত ২১ জুন, ২০২০ রাত ৭.২৫টায় কোতয়ালী থানার ‘‘রয়েল টি স্টল”এর সামনে ভিকটিম এসহানুল হক ও তার বন্ধু শোয়েব একত্রে চা পান করছিল। উক্ত চায়ের দোকানে শাকিল, শাখাওয়াত ও তানভীর নামে তিন জন যুবকও চা পান করছিল। উল্লেখিত যুবকগণ চা পানরত অবস্থায় উক্ত চায়ের দোকানে গ্রেফতারকৃত আসামী আল শাহরিয়ার (২০) এর সহযোগী বন্ধু দূর্জয় (২০) ও  মাসুদ (২৫) একটি মোটরসাইকেল যোগে সেখানে আসে। এলাকায় মাদক বিক্রয় সংক্রান্তে শাকিল ও দূর্জয়ের মধ্যে পূর্ব শত্রুতা ছিল। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দূর্জয়, শাকিলকে চায়ের দোকানে পেয়ে মারধর শুরু করে এবং শাকিলের মোটর সাইকেলের চাবি কেড়ে নেয়। ঘটনাস্থলে ভিকটিম এহসানুল হক উভয় পক্ষের মারামারি ও বিরোধ নিষ্পত্তি করার চেষ্টাকালে তাদের মধ্যে গোলযোগ থামানোর একপর্যায়ে এহসানুল হক দূর্জয়কে চড় থাপ্পড় মেরে তাৎক্ষণিক উভয়ের মধ্যে সমঝোতা করে দেয়। ভিকটিম কর্তৃক দূর্জয়কে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার জন্য ভিকটিমের উপর ক্ষিপ্ত হয়। ইতিমধ্যে শাকিল ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। অতঃপর রাত অনুমানিক ৭.৪০ টায় পূর্বপরিকল্পিতভাবে দূর্জয়, তার বড় ভাই বাবু ও সোহাগ মোটর সাইকেলযোগে পুনরায় ‘‘রয়েল টি স্টল” এ  যায়। দূর্জয়ের অন্যান্য সহযোগী গ্রেফতারকৃত অভিযুক্ত আল শাহরিয়ারসহ, মাসুদ, ইয়াসিন, সুইট, শাহিন ও আসিফ ২টি অটোরিক্সাযোগে ঘটনাস্থলে যায়। এহসানুল হককে উক্ত স্থানে বসে থাকা অবস্থায় পেয়ে প্রথমে দূর্জয় ও সোহাগ তাদের হাতে থাকা বার্মিজ ছুরি দিয়ে ভিকটিমকে এলোপাতাড়ী কুপাতে থাকে এবং গ্রেফতারকৃত অভিযুক্ত আল শাহরিয়ার ও অন্যান্য অভিযুক্তরা তাদের হাতে থাকা দা দিয়ে ভিকটিমকে কুপিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। পরবর্তীতে গুরুতর আহত এহসানুলকে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত্র ৮.৫০ টায় মৃত্যুবরণ করে।

গ্রেফতারকৃত শাহরিয়ারকে বিজ্ঞ আদালতে হাজির করলে আসামী ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে পিবিআই। মামলাটি তদন্তাধীন আছে।

এমন আরও সংবাদ

Back to top button
Close
Close