বিনোদন

‘বিশেষ সময়’ কাটাইনি বলে বাদ পড়তাম: শ্রীলেখা

বিনোদন ডেস্ক: বলিউড অভিনেতা সুশান্তের মৃত্যুর পর এবার নেপোটিজমের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন চল্লিশোর্ধ্ব অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। বলা হয় টালিউডে মুখ আর শরীরী খেলায় সবাইকে তাক লাগানো এই অভিনেত্রী নেপোটিজমের শিকার শুরু থেকেই। তবে বাংলাদেশ বংশোদ্ভূত এই ভারতীয় অভিনেত্রী আপন ইচ্ছায় সবকিছু দূরে ঠেলে আজ প্রথম সারির অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। যদিও পথটি এতটাই সহজ নয় যতোটা সহজে তার শারীরিক ভাষার বর্ণনা সিনে সাংবাদিকরা দেন। আর সেসব শব্দ রসিয়ে পড়তে ১৮+ দর্শক হুমড়ি খেয়ে পড়েন। পাড়ার ছেলেরা অপেক্ষায় থাকেন শ্রীলেখার বিস্ফোরকমাখা কথাগুলো তার শরীরের আবেদনময়ী রেখার সঙ্গে মিশিয়ে তীব্র আনন্দ পেতে।
অ্যাডাল্ট মুভিতে নিজেকে মেলে ধরতে এক হাত এগিয়ে থাকা শ্রীলেখা যুবক-পৌঢ়দের পছন্দের শীর্ষে। তবে কপটহীন ব্যক্তিজীবনে কি সেটা পর্দায়। এ জায়গাতেই শ্রীলেখা অনন্য।
শ্রীলেখা মিত্র। বলছিলেন নেপোটিজম নিয়ে। ‘ইন্ডাস্ট্রির ক্যাম্প আছে। নায়ক বা তার প্রেমিকার আবদারে ছবি থেকে অন্য অভিনেতাকে সরিয়ে দেওয়া… এসব টালিউডে অনেক কাল ধরেই চলে এসেছে। আজ সুশান্তের আত্মহত্যার কারণে ইন্ডাস্ট্রির জঘন্য রাজনীতি নিয়ে আমরা সরব।’

 

তার এমন কথায় পরিষ্কার তিক্ততার ছাপ। অভিনেত্রী কোনো বিশেষ ঘটনার খোলসা কি করবেন? ‘সুপারহিট হলো ‘অন্নদাতা’। পরের ছবিতে সাইন করার কিছুদিন পর জানলাম বাদ পড়ার কথা। ছবির হিরোর সঙ্গে যিনি প্রেম করছেন, তাকেই নেওয়ায় দাবি এসেছে।’’  ‘পার্টিবাজ’ প্রযোজক-পরিচালকের সঙ্গে ডিনারে যাননি, বিশেষ সময় কাটাননি বলেই অভিনেত্রীকে শেষ মুহূর্তে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে অনেক ছবি থেকেই। মন খারাপ হলেও মনোবল ভাঙেনি শ্রীলেখার।
‘‘হারতে শিখিনি। যারা আমার হাত থেকে কাজ কেড়েছেন, তাদের বলি স্প্রিং বল, আবার মাথা তুলে দাঁড়াবই,’’ আত্মবিশ্বাসী শ্রীলেখা।

এমন আরও সংবাদ

Back to top button
Close
Close